অন্যান্য কলাম/ফিচার টপ নিউজ নির্বাচিত

অলিম্পিকে পদক জয়ের স্বপ্ন দিয়ার

প্যারিসের শার্লে স্টেডিয়ামের অলিম্পিক বাছাইপর্বের দ্বিতীয় পর্ব। স্লোভেনিয়ান প্রতিপক্ষ আনা উমেরের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে বাংলাদেশের আরচ্যার দিয়া সিদ্দিকীর। জয় পা‌ওয়ার আত্মবিশ্বাস দিয়ার। প্রথম দুই সেটে পিছিয়ে পড়লেও পরের দুই সেটে দারুণভাবে ঘুরে দাড়ান। খেলা গড়ায় পঞ্চম সেটে। শেষ সেটে দুজনের স্কোর সমান, এবার টাইব্রেকারের পালা। দিয়া-আনা দুজনেরই স্কোর হলো আট। লক্ষ্য থেকে খানিকটা দূরে তীর পড়ায় হেরে গেলেন দিয়া। নষ্ট হয় সরাসরি অলিম্পিকে খেলার সুযোগ।

প্রায় জেতা ম্যাচটা হেরেছেন, অলিম্পিকে খেলা হবে কি না সেটাও নিশ্চিত নয়। প্যারিসে সতীর্থদের মাঝে দিয়া চেষ্টা করছেন নিজেকে স্বাভাবিক রাখতে। অথচ ভেতরটা জ্বলছে হেরে যাওয়ার যন্ত্রণায়। এমন সময়ই সন্ধ্যায় সতীর্থ রোমান সানার বার্তা ‘অভিনন্দন’। ই–মেইলে ওয়ার্ল্ড আর্চারি জানিয়েছে, বিশেষ আমন্ত্রণে টোকিও অলিম্পিকে রোমান সানার সঙ্গী হয়েছেন আরেক আরচ্যার দিয়া সিদ্দিকী।

শুক্রবারই টোকিওর বিমান ধরার কথা দিয়াদের। সঙ্গী দুইবছর আগে অলিম্পিকে সরাসরি সুযোগ করে নেওয়া আরেক আরচ্যার রোমান সানা ও শুটার আবদুল্লাহ হেল বাকি। স্বপ্নের অলিম্পিকে খেলতে যাওয়ার আগে নিজের সম্ভাবনা ও লক্ষ্যের কথা জানান, প্যারিস বিশ্বকাপে মিক্সড ইভেন্টে রুপাজয়ী তীরন্দাজ। বলেন, ‘লক্ষ্য সব সময় উঁচুতে থাকা উচিত। কিন্তু একই সঙ্গে খেয়াল রাখতে হবে বিশ্বের সেরা আরচ্যাররা অলিম্পিকে খেলেন। সব মিলিয়ে ১৬৮ আরচ্যার খেলবেন অলিম্পিকে। খুব কঠিন। লোজান-প্যারিস বিশ্বকাপে চীন, কোরিয়া, চায়নিজ তাইপের খেলোয়াড়েরা খেলেনি। আরচ্যারিতে এসব দেশ খুবই ভালো। র‍্যাঙ্কিংয়েও তারা এগিয়ে। তবু চেষ্টা করে যাব।’

প্যারিস বিশ্বকাপে মিক্সড ইভেন্টে রোমান সানার সঙ্গী হয়ে রুপা জিতেছিলেন দিয়া। অলিম্পিকেও কি এমন কিছুর স্বপ্নই দেখাচ্ছেন দুই তিরন্দাজ? দিয়া নিজেদের সম্ভাবনার কথা জানালেন এভাবে, ‘রোমান ভাইয়ের সঙ্গে আমার সম্পর্কটা বন্ধুত্বপূর্ণ। তিনি সব সময় আমাকে দিকনির্দেশনা দেন, সাহস জোগান। বড় মানের একজন খেলোয়াড়, তাঁর কাঁধে বড় দায়িত্ব। রোমান ভাইয়ের সঙ্গে আমার বোঝাপড়াটা ভীষণ ভালো। ভালো একটা দল গড়তে হলে বোঝাপড়াটাও ভালো হতে হয়।’

ইতিহাস গড়ার প্রথম শর্ত, দলের বোঝাপড়াটা হতে হবে ভালো। সেটি যখন আছে, অলিম্পিকের আসল মঞ্চে দিয়াবাত্তি জ্বলে উঠলেই হয়। অপেক্ষা সঠিক সময়ের।